গবাদিপশুতে স্বাস্থ্যহানিকর রাসায়নিক দ্রব্যের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ

0
396

আসন্ন কোরবানি ঈদ ঘিরে গবাদিপশুতে স্বাস্থ্যহানিকর রাসায়নিক দ্রব্যের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ নিচ্ছে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর। সেজন্য গবাদিপশুর ল্যাবরেটরি পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগ প্রাণী স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর স্টেরয়েড ও হরমোনজাতীয় ওষুধের বিক্রয় ও সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ, সীমান্তবর্তী এলাকায় ওসব দ্রব্য চোরাইপথে আসা বন্ধে কঠোরভাবে মনিটরিং করবে। প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, অতিসম্প্রতি ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির হাটে ভেটেরিনারি সেবা সংক্রাšন্ত এক সভা হয়েছে। ওই বলা হয়, এ বছর পশুর প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ছোট হাটে অšন্তত ১টি, বড় হাটে ২টি করে এবং ঢাকার গাবতলী পশুর হাটে ৪টি মেডিকেল টিম থাকবে। রাজধানীর প্রতিটি টিমে ১ জন ভেটেরিনারি সার্জন, ১ জন টেকনিক্যাল কর্মী (ভিএফএ/ইউএলএ) এবং ১ জন করে শেরেবাংলা নগর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টার্নি ভেটেরিনারি সার্জন থাকবেন। গতবছর সারা দেশের ২ হাজার ৩৬২টি পশুর হাটে মোট ১ হাজার ১৯৩টি মেডিকেল টিম দায়িত্ব পালন করে।
সূত্র জানায়, এবার ঈদুল আজহায় কোরবানি দেয়ার জন্য ১ কোটি ১৫ লাখ ৮৯ হাজার গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া ও অন্যান্য প্রাণী রয়েছে। ফলে দেশি গবাদিপশুতেই এ বছর কোরবানির চাহিদা মিটবে। তার মধ্যে কোরবানির বাজারে ওঠানোর জন্য খামারে হৃষ্টপুষ্ট হওয়া গরু-মহিষের সংখ্যা প্রায় ২৯ লাখ ১০ হাজার। গতবছর ঈদুল আজহায় দেশে ১ কোটি ৪ লাখ পশু জবাই হয়েছিল। তার মধ্যে ৪৫ লাখ ২৯ হাজার ছিল গরু-মহিষ। বাকি ৫৮ লাখ ৯১ হাজার ছিল ছাগল-ভেড়া। এ বছর ঈদুল আজহায় জবাই হওয়া পশুর সংখ্যা ৫ শতাংশ বাড়লেও গরু-ছাগলের অভাব হবে না বলে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর সংশ্লিষ্টরা আশাবাদী।
এদিকে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক এ বি এম খালেদুজ্জামান জানান, কোরবানির জন্য মোট প্রস্তুত পশুর মধ্যে ৪৪ লাখ ৫৭ হাজার গরু-মহিষ, ৭১ লাখ ছাগল-ভেড়া ও প্রায় ৩২ হাজার উট-দুম্বা। গরু-মহিষের মধ্যে প্রায় ২৯ লাখ ১০ হাজার হৃষ্টপুষ্ট। বাকি ১৫ লাখ ৪৬ হাজার অনুৎপাদনশীল বা বয়স্ক। গতবছর হৃষ্টপুষ্ট গরু-মহিষের সংখ্যা ছিল ৩৩ লাখ। আর এ বছর ছাগল-ভেড়ার মধ্যে হৃষ্টপুষ্ট ১৮ লাখ ২৬ হাজার এবং অনুৎপাদনশীল ৫২ লাখ ৭৩ হাজার। এ বছর ঈদুল আজহায় কোরবানি দেওয়ার জন্য ১ কোটি ১৫ লাখ ৮৯ হাজার গবাদিপশু রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here