দেশীয় সংস্কৃতি বিরোধী একাউন্ট বন্ধ করেছে টিকটক

0
112

দেশের যুবসমাজকে অশ্লীলতা থেকে দূরে রাখতে বেশ কিছু পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে সরকার। একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আবারো ক্ষমতায় আসার পর আপত্তিকর কন্টেন্ট বন্ধ করার উদ্দেশ্যে পদক্ষেপ গ্রহণ করে সরকার। আর এই পদক্ষেপ গ্রহণের ফলশ্রুতিতে ইতোমধ্যে প্রায় ২০ হাজার আপত্তিকর কন্টেন্টে ভরপুর ও জুয়া খেলার সাইট বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। আরো বেশ কিছু সাইট বন্ধের প্রক্রিয়া অব্যাহত আছে বলে জানিয়েছে সরকারের একাদিক সূত্র। সম্প্রতি বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিরোধী প্রায় দুই লাখ ভিডিও মুছে ফেলেছে আলোচিত ভিডিও ফানি অ্যাপস টিকটক। এছাড়া আরও ১৫০টি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে টিকটক কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, ইন্টারনেটে আপত্তিকর অশ্লীল কনটেন্ট ও জুয়ার যতো সাইট বন্ধে অভিযান চালাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। সেই তালিকায় উঠে আসে টিকটক’র নামও। ফলে টনক নড়ে টিকটকের। তারা দাবি করছে, বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিরোধী প্রায় দুই লাখ ভিডিও মুছে ফেলেছে এবং ১৫০টি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করেছে। বিবৃতিতে টিকটক বলছে, বাংলাদেশের মানুষ এবং সমাজের কল্যাণ ও নিরাপত্তা রক্ষার্থে সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বসমূহ সম্পূর্ণরূপে অনুধাবন করেছে টিকটক। মন্ত্রণালয়টির এমন পদক্ষেপকে পূর্ণ সমর্থন জানায় টিকটক কর্তৃপক্ষ।
বিবৃতিতে টিকটকের মুখপাত্র বলেন, ‘টিকটক প্ল্যাটফর্মে যেকোনো অবৈধ ও অনুপযুক্ত কনটেন্ট ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করি। আমরা সবসময় স্থানীয় আইন মেনে আমাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকি, বিশেষ করে দেশের মানুষ ও সমাজের নিরাপত্তা রক্ষার্থে নিরাপদ ইন্টারনেট ব্যবহার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক গৃহীত ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট মেনে চলার ক্ষেত্রে আমরা খুবই যত্নবান। এর সাথে সংগতি রেখে আমরা এ আনুষ্ঠানিক বিবৃতিটি প্রদান করছি।

এদিকে টিকটক বন্ধের বিষয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, শুধু টিকটক নয় দেশীয় সংস্কৃতির জন্য হুমকি রয়েছে এমন সব ধরনের সাইট আমরা বন্ধ করে দিতে চাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here