বিশেষ সম্পাদকীয়

0
104

মহান স্বাধীনতার দিবসের গৌরবজ্জল মুহূর্তকে ধারণ করতে ‘সত্য প্রকাশে নির্ভীক’Ñএই দৃঢ় প্রত্যয় সামনে রেখে দৈনিক সকালের কাগজের যাত্রা শুরু হয়েছিল আজকের দিনটিতে। ধীর লয়ে চলতে চলতে আটটি বছর পেরিয়ে ৯ম বছরে পদার্পণ করলো পত্রিকাটি। এ উপলক্ষে পাঠক, শুভানুধ্যায়ী, বিজ্ঞাপনদাতাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি জানাই কৃতজ্ঞতা ।
অনেক আশা, অনেক স্বপ্ন নিয়ে যাত্রা শুরু হয় আমাদের। সকল পথ মসৃণ নয়। অনেক ত্যাগ আর শ্রমের বিনিময়ে সকল বাধা পেরুতে না পারলেও সঠিক লক্ষ্যে পৌঁছার প্রচেষ্টা আমাদের নিরন্তর। আমরা সকল রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে আমরা সত্য প্রকাশে দৃঢ়তা দেখিয়েছি। এই প্রকাশে কোন ত্রুটি বিচ্যুতি ছিলনা সে কথা বলা যাবেনা। কিন্তু প্রতিদিনই প্রচেষ্টা অব্যাহত সে সকল ত্রুটি বিচ্যুতি এড়িয়ে চলার।
কিছু উদ্দেশ্য সাধনের মাধ্যমে আমরা কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছার দিকে ধাবমান। সেসব উদ্দেশ্য অবশ্যই সকল শ্রেণিপেশার মানুষের তথা এ অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য নির্দিষ্ট করা। আমরা কাঙ্খিত লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যেও পূরণে কতখানি সক্ষম হয়েছি তা মূল্যায়নের ভার পাঠকের হাতেই রইল।
আশার কথা হলো সকালের কাগজ তার চলার পথের শুভানুধ্যায়ীদের ধরে রাখতে পেরেছে। সবচেয়ে বড় পাওয়া আমরা একটি পাঠক শ্রেণী গড়ে তুলতে পেরেছি। সততা দিয়ে সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে সকালের কাগজ দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পেরেছে।
কুড়িগ্রামের মতো মফস্বল শহর থেকে একটি পত্রিকা প্রকাশকে আমরা ব্রত হিসেবে নিয়েছিলাম। আমাদের ব্রতটি ছিলো ‘সবার আগে সব তথ্য সবার জন্য’। তথ্য জানার অধিকারটির দিকে লক্ষ্য রেখে আমরা একটি লড়াইয়ের অংশীদার হয়েছি মাত্র। আমরা জানি সব তথ্য সব সময় প্রকাশ করতে নেই। যে তথ্য জনসম্পৃক্ত, যে তথ্য মানুষকে এগিয়ে নিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে, সকালের কাগজ তার জন্মলগ্ন থেকেই সেই তথ্যের সন্ধানে নিবেদিত। আমাদের রয়েছে একদল দক্ষ সংবাদকর্মী, যাদের রয়েছে পেশার প্রতি দায়িত্ববোধ ও মমতা। ইতোমধ্যেই সকালের কাগজ অনলাইন সংস্করণ শুরু করেছে। এই মাধ্যমে আমরা ছড়িয়ে পড়ছি সারা বিশ্বে, এর ফলে দেশবিদেশের পাঠক সার্বক্ষণিক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে পারছে। কুড়িগ্রাম জেলার প্রবাসীরা বিদেশে বসেই তার এলাকার খবর তাৎক্ষণিক জানতে পারছে। এ প্রসঙ্গে বলে রাখা ভালো যে, আঞ্চলিক দৈনিক হিসেবে প্রথমতঃ আমাদের লক্ষ্য কুড়িগ্রামের খবরকে প্রাধান্য দেয়া। এরপর আমরা সারাদেশের খবরকে গুরুত্ব দেই। অবশ্য বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে এর ব্যত্যয়ও ঘটে।
যে আশা আর স্বপ্নকে সাথী করে আমাদের পথ চলা শুরু হয়েছিলো, আজ এই নয় বছরের পথচলার সুবর্ণ সময়ে সেখান থেকে সকালের কাগজ পিছু হটে যায়নি। বরঞ্চ সে স্বপ্ন হয়েছে আরো দৃঢ়, আরো প্রত্যয়ী। সামনের দিনে ঠিক আজকের মতো আপনারা সকালের কাগজের সাথে থাকবেন, এই প্রত্যাশা করি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here