কচাকাটায় গ্রাম্য শালিসে ভাতিজার কোপে চাচা জখম

0
152

নাগেশ্বরী প্রতিনিধি:
নাগেশ্বরীতে জমিজমার বিরোধে স্কুল শিক্ষক চাচাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে আপন ভাতিজা। ভাতিজার কোপে জখম হয়েও মামলার ভয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে কচাকাটা থানার কেদার ইউপির বিষ্ণুপুর নয় আনা গ্রামে।
জানাগেছে, উক্ত গ্রামের মৃত জাপান আলীর পুত্র ও বিষ্ণুপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম (৫০) এর সঙ্গে তার আপন ভাই নজরুল ইসলামের জমিজমা নিয়ে আদালতে মামলাসহ বিরোধ চলে আসছিল। গত ২৪ মার্চ স্থানীয়রা বিষয়টি নিস্পত্তির জন্য গ্রাম্য শালিস বসিয়ে জমির সীমানা ভাগ করে দিলে গ্রাম্য মহৎগণসহ জমির সীমানায় বেড়া দিতে গেলে নজরুল ইসলাম ও তার লোকজন শালিস অমান্য করে বেড়া দিতে বাঁধা গালিগালাজ করতে থাকে।
এ সময় শিক্ষক রফিকুল ইসলাম ও তার পুত্র মনিরুজ্জামান মামুন তাদের প্রতবাদ করতে গেলে নজরুল ইসলাম ও তার দুই পুত্র কামরুজ্জামান নয়ন (২০) ও কফিলুর রহমান (১৮) এবং স্ত্রী কুলসুম বেগম (৩৮) সহ অতর্কিত ভাবে দেশীয় ধারালো লাঠি, দা, কুড়াল দিয়ে মামুনকে আক্রমন করে মাটিতে ফেলে দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। মামুনের চিৎকারে রফিকুল ইসলাম এগিয়ে আসলে নজরুল ইসলামের নির্দেশে তার পুত্র কামরুজ্জামান নয়ন চড়াও হয়ে কুড়াল দিয়ে মাথায় কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে জখম করে। পিতা পুত্রের আর্ত চিৎকারে লোকজন তাদের উদ্ধার ভুরুঙ্গামারী সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়।
পরে চিকিৎসকগণ তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। রফিকুল চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে ২৮ মার্চ কচাকাটা থানায় নজরুল ইসলাম সহ ৫ জনের নামে দঃ বিঃ ১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/১১৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে যার নং ০৫, ২৮.৩.২০১৯। অপরদিকে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রভাবিত করতে নজরুল ইসলামের স্ত্রীর ভাই বলদিয়া ইউনিয়নের মংলারকুটি গ্রামের আব্দুল করিমের পুত্র আবুল কাশেম পরের দিন রফিকুল ইসলামসহ ৬ জনের নামে কচাকাটা থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করে যার নং ০৬, ২৯.৩.১৯। মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে জখম করায় রফিকুল ইসলাম বর্তমানে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় পরিবার নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।
এ ব্যাপারে কচাকাটা-ভূরুঙ্গামারী থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত ভূরুঙ্গামারী সার্কেল সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শওকত আলীর নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, উক্ত শিক্ষক মামলা করেছে। মামলা তদন্তাধীন রয়েছে। তদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। অপর পক্ষ কর্তৃক মামলার করার বিষয়ে তিনি আরও জানান, মামলা করার সকলেরই অধিকার আছে। মামলা করাটাই বড় কথা নয়। তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here