লেখাপড়া অনিশ্চিত অদম্য মেধাবী আরিফুলের

0
95

স্টাফ রিপোর্টার:
এসএসসিতে এ প্লাস পেয়েও অর্থাভাবে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে অদম্য মেধাবী আরিফুল ইসলামের লেখাপড়া। দিনমজুর বাবা ঋণের দায় মেটাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন। তাই আরিফুলের লেখাপড়ার খরচ জোগাতে তিনি জানিয়েছেন অপারগতা। উপায় না পেয়ে আরিফ লেখাপড়ার পাঠ চুকিয়ে রড মিস্ত্রির জোগালি দেয়ার জন্য ঢাকা যাওয়ার কথা ভাবছেন। আরিফুল এসএসসি পরীক্ষার পর ঢাকায় দেড় মাস রড মিস্ত্রির জোগালির কাজ করেছে । এই এলাকার মধ্যে সে ভালো ফলাফল করলেও হাসি নেই বাবা-মায়ের মুখে।
মো: আরিফুল ইসলাম এসএসসি পরীক্ষায় নাগেশ্বরীর ভিতরবন্দ ইউনিয়নের নন্দনপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার বিজ্ঞান বিভাগে এ প্লাস পেয়েছে। তার ইচ্ছে উচ্চ শিক্ষা লাভ করে ক্যাডার সার্ভিসে যোগ দেয়া। কিন্তু দারিদ্রতা তার স্বপ্নের পথে পাহাড় সমান বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
আরিফুলের বাবা নন্দনপুর গ্রামের হত দরিদ্র দিনমজুর জয়নাল আবেদীন। সহায় সম্পদ বলতে বাস্তভিটার ৪ শতক জমি। বাড়িতে একটি মাত্র ভাঙা টিনের ঘর। এলাকায় সারা বছর কাজ না থাকায় তাকে বছরের ৬-৭ মাস ছুটতে হয় কুমিল্লায়। সেখানে ধানকাটা ও মাটিকাটার কাজ করে বাড়িতে টাকা পাঠান। কিন্তু দুই ছেলে মেয়ের লেখাপড়ার খরচ, মেয়ের বিয়ে আর অভাবে পড়ে দুটি এনজিও থেকে নেয়া ঋণের কিস্তি মেটানোর পর দু’মুঠো ভাত খাওয়াই দায় পরিবারের সদস্যদের। আরিফুলের মা আসমা বেগম জানান, ব্র্যাক থেকে ৩০ হাজার টাকা ও আশা থেকে ৪০ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছেন। মাসে কিস্তি গুণতে হয় প্রায় সাড়ে আট হাজার টাকা। এই টাকা দেয়ার পর সংসারের খরচ মেটাতে হিমশিম খেতে হয়। বাড়িতে একটি মাত্র ঘর। তাও ভাঙা। আরিফুলকে থাকতে হয় দাদুর সাথে। আত্মীয় স্বজনদের দেয়া পুরাতন জামা প্যান্ট পড়ে ছুটতে হয়েছে স্কুলে।
তিনি জানান, লেখাপড়ার খরচ মেটাতে না পেরে তার উচ্চ মাধ্যমিকে পড়া মেয়ে জান্নাতুনকে বাল্যবিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন। এখন আরিফুলের ভর্তি, বই ও টিউশনির খরচ কীভাবে জুটবে জানেন না তিনি।
আরিফুল বলেন, ‘ টাকার অভাবে প্রাইভেট টিউশনি পড়তে পারিনি। তাই কয়েকটি বিষয়ে আশানুরুপ ফল হয়নি। ভর্তির টাকা জোগার করতে রড মিস্ত্রির জোগালির কাজ করেছি। কিন্তু ঠিকাদার এখনও টাকা দেয়নি। এবার কোন মতে কলেজে ভর্তি হয়ে আবার কাজ করতে ঢাকায় যেতে হবে। এভাবে কাজের ফাঁকে ফাঁকে লেখাপড়া করা ছাড়া আমার আর কোন উপায় নেই।’ এ কথা বলেই হাতে রড টানার কারণে পড়ে যাওয়া ফোস্কার দাগ দেখিয়ে কেঁেদ ফেলে আরিফুল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here