সেবক হয়ে কাজ করছেন নির্বাহী কর্মকর্তা শামসুজ্জোহা

0
191

বিশেষ প্রতিবেদক:
সমাজ সংসারে কিছু মানুষ থাকে যারা নিজেদের ভোগ বিলাস আর অর্থ ও প্রতিপত্তির চেয়ে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সেবা করার আনন্দটাকেই পরম পাওয়া মনে করেন। সামাজিক কল্যাণের জন্য তারা বিনা দ্বিধায় নিজেদের উৎসর্গ করেন স্বতঃস্ফূর্তভাবেই। সারা বিশ্বজুড়ে এমন মানুষ রয়েছেন অনেক। তারা প্রচার প্রিয় নন। এমন অনেক ব্যাক্তি বা কর্মকর্তার কথাই আমরা জানি। আবার জানিনা অনেকের কথাই। এমনি একজন উঠে এসেছে অনুসন্ধানে তিনি চিলমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মোঃ শামসুজ্জোহা। দিনে দিনে মানবতার সেবায় এগিয়ে নিচ্ছেন চিলমারী প্রশাসনকে। মানুষের দুঃখ কষ্ট আর দুর্ভোগের কথা শুনলেই ছুটে যাচ্ছেন দাঁড়াচ্ছেন অসহায় মানুষের পাশে। হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন সাহায্যের। সরকারের পক্ষ থেকে তুলে দিচ্ছেন সরকারী অনুদান। গৃহহীনকে দেখাচ্ছে স্বপ্নে নীড়। আশ্রয়হীন কে আশ্রয়, ক্ষতিগ্রস্তদের পূর্নবাসন, বন্যার্ত মানুষের সহায়তা। শুধু তাই নয় কৃষকরা যেন তাদের ন্যায অধিকার পায় সেদিকও রাখেন বিশেষ নজর। সকল সিন্ডিকেট ভেঙ্গে লটারীর মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন করাটাও ছিল তার বিশেষ অবদান। টিআর, কাবিখা, সোলার স্থাপনসহ বিভিন্ন সরকারী বরাদ্দ কাজে যেন সরকার সুনাম অর্জন করে সে ব্যাপারের রয়েছেন এগিয়ে। একজন কর্মঠ দায়িত্বশীল অফিসার হিসাবে শ্রম ও দক্ষতার মাধ্যমে উপজেলার পরিবর্তন আনতে শুরু করেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মোঃ শামসুজ্জোহা কার্যকরী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে বদলে যাচ্ছে চিলমারী উপজেলার চিত্র। তিনি ২০১৮ সালের ১৮ নভেম্বর চিলমারী উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগদান করেন। তাঁর যোগদানের পর থেকেই উপজেলার বিভিন্ন কর্মকান্ড নবরুপে রুপান্তরিত হতে শুরু করেছে। এছাড়াও অন্যায় কে অন্যায় ন্যায় কে ন্যায়ের স্থানে প্রতিষ্ঠিত করাসহ অন্যায়কারীদের সিন্ডেকেট ভেঙ্গে মুক্তকরার চেষ্টা যাচ্ছেন চালিয়ে। উপজেলার সকল অফিসে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা নিরসন করার চেষ্টা রেখেছেন অব্যাহত। যার ফলে অন্য যে কোনো সময়ের তুলনায় বর্তমানে সকল উন্নয়নমূলক ফাইল তড়িৎ গতিতে হচ্ছে। এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনও দক্ষতার সাথে কোন প্রকার সমস্যা ছাড়াই সুষ্ঠ ও সুন্দর পরিবেশে সম্পর্ন করেছেন। সরকারী সহযোগীতায় ৭৪’এর আলোচিত গৃহহীন বাসন্তীকে দেখিছেন সুখের ঠিকানা। তার দক্ষতা সহযোগীতা উন্নয়নের ধারা অব্যাহতরাখাসহ উন্নয়নমূলক কাজকর্ম দেখে গোটা উপজেলাবাসী তাকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন। শাহ মোঃ শামসুজ্জোহা গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর (নানার বাড়িতে) জন্ম গ্রহন করেন। তিনি সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কঞ্চিবাড়ী কালিরখামার এলাকার সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা ও অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক শাহ মোঃ রেজাউল আলমের সন্তান। দু’ভাই বোনের মধ্যে তিনি ছোট মায়ের নাম মোছাঃ সামসুন নাহার বেগম তিনি একজন গৃহনী। শাহ মোঃ শামসুজ্জোহা কঞ্চিবাড়ী ২ নং সঃ প্রাঃ বিদ্যাঃ থেকে ৫ম শ্রেনী, চন্ডীপুর ফজলুল হক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ থেকে এইচ এস সি, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সিলেট (সমাজকর্ম বিভাগে অনার্স ও মাস্টার্স) শেষে করে ৩১ বিসিএস এ প্রশাসন ক্যাডারে যোগদান করেন। প্রথমে বগুড়া ডিসি অফিসে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসাবে যোগদান করেন। পরে এসি ল্যান্ড হিসাবে বগুড়ার নন্দীগ্রাম, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, টাঙ্গাইলের নাগরপুর, গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকায় দায়িত্ব পালন করেন এবং এরপর ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসাবে কুড়িগ্রামের চিলমারীতে যোগদান করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, আমি কর্মে বিশ্বাসী। আমার দায়বদ্ধতা থেকেই এই সকল উন্নয়নমূলক কাজ করছি। এসব কাজে স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন স্যার, উপজেলা চেয়ারম্যান শওকত আলী সরকার বীর বিক্রমসহ জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দ আমাকে সহযোগিতা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here