একটি সাজানো উপজেলা রাজারহাট

0
213

সাওরাত হোসেন সোহেল:
একটি উপজেলা একজন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসীর সহযোগীতায় এগিয়ে নিতে পারেন গড়ে তুলতে পারেন সুন্দর, সাজানো পরিস্কার, পরিচ্ছন্ন একটি উপজেলা। তাই প্রমান করেছেন রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহঃ রাশেদুল হক প্রধান।
পরিষদ চত্ত্বরে কেউ প্রবেশ করলেই ভাবতেই পাবে না সে কুড়িগ্রাম জেলার ৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত উপজেলা রাজারহাট উপজেলা পরিষদ চত্তরে অবস্থান করছে। সরেজমিন প্রবেশ রাজারহাট উপজেলা কোলাহল বাজারটি বাজার থেকে সামান্য দুরেই থানা এর পর উপজেলা পরিষদ। প্রধান গেটটির সামন থেকেই উপজেলা পরিষদ চত্তরে প্রবেশ করেই মনেই হবেনা উপজেলাটি কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট।
চারদিকে সাজানো গোছানো পরিস্কার পরিচ্ছন্ন। ভিতরের রাস্তার দু’ধারে সাজানো ফুলের গাছ ও রাস্তা সাজানো। পাশে রয়েছে ফুলের বাগান। স্থানে স্থানে রয়েছে বসায় সুন্দর পরিবেশে। ভিতরের রাস্তা কিংবা কোন স্থানে পড়ে নেই কোন আবর্জনা এমনকি গাছের পাতা। একদম সাজানো একটি রাজ্য বা অন্য কোন রাষ্ট্র (বিদেশ), মহল বা শিল্পির হাতে আকাঁ কোন ছবি কিংবা প্রিন্টিং। পরিষদ ভবনের সামনে ফুলের বাগনটিও সাজানো গোছানো। পরিষদ ভবনের পাশেই একটি হলরুম দু’ধার সুন্দর সাজানো। শুধু তাই নয় প্রতিটি অফিসের পথে পথে সাজানো ফুলের বাগান এবং মাঠের ঘাস গুলো দেখলে মনে হবে যেন বিছানো রয়েছে কার্পেট ঘাস। পাশেই শিশু পার্ক। পার্কটি দেখেই প্রথমে কেউ মনেই করতে পারবে না এটা বিদেশের কোন একটি স্থান নয়। কিন্তু না এটিও রাজারহাট উপজেলা পরিষদ চত্তরের ভিতরের একটি অংশ। পার্কটির চারদিকে সাজানো ফুলের বাগান। পার্কটিও পরিস্কার পরিচ্ছন্ন নেই কোন অপরিস্কারের চিহ্ন। পার্কেও পাশেই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবন। বাসভবনের সামন এবং ভিতরেও সাজানো গোছানো ফুলের বাগান সেখানেও নেই কোন অপরিস্কারের চিহ্ন। শুধু তাই নয় উপজেলা ভুমি অফিসটিও সাজানো গোছানো মনোরম পরিবেশ যেন কোন পার্ক সুবিধা নিতে আসা মানুষের মাঝে বইছে শান্তির পরশ।
কথা হয় প্রেস ক্লাব রাজারহাট সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলামের সাথে, তিনি বলেন, সত্যি আমরা মুগ্ধ এবং ভাগ্যবান এমন একজন নির্বাহী অফিসার পেয়ে, মুহঃ রাশেদুল হক প্রধান স্যার যোগদানের পর থেকে পরিকল্পনা করেন এবং সাজিয়ে দেন আমাদের এই উপজেলা পরিষদটি। পরিষদে প্রবেশ করলেও মন ভরে যায়।
পরিষদ চত্তর ও পার্কে ঘুরতে আসা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নুরনবীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, বিদেশ দেখিনি শুনেছি সুন্দর্যের কথা কখনো হয়তো দেখার ভাগ্য হবে না কিন্তু এই পরিষদ চত্তরে ঘুরে খুব ভালো লাগলো এছাড়াও কারো মন খারাব লাগলে এখানে আসলেও আশা করি তার মন ভালো হবে উপজেলাটি দেখে সত্যি আজ গর্ব হচ্ছে আমি বাঙ্গালী। এলাকার সচেতন মহল বলেন সত্যি উপজেলা নির্বাহী অফিসার যেভাবে কষ্ট করে পরিষদ চত্তর সাজিয়েছেন তা দেখলেই যে কেউ বলেই দিবে সোনাল বাংলা সত্যি সোলার পরিষদ রাজারহাট তিনি প্রশংসার যোগ্য এভাবে যদি প্রতিটি উপজেলা সাজানো থাকতো তাহলে সত্যি বাংলাদেশ একটি অহঙ্কার করার মতো দেশ হবে।
এব্যাপারে রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহঃ রাশেদুল হক প্রধান বলেন একটি সাজানো গোছানো সুন্দর পরিবেশ মনকে ভালো রাখে ভালো কাজ করতে উৎসাহ প্রধান করে।
তিনি আরো বলেন, এলাকার জনপ্রতিনিধি, সংবাদকর্মীসহ এলাকাবাসীর সহযোগীতায় কাজ গুলো করতে পেরেছি। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ইতি পুর্বে নিলফামারী জলঢাকা উপজেলায় নির্বাহী অফিসার থাকা কালিন সেই উপজেলাটিও মনোরম পরিবেশে সাজিয়েছেন নির্বাহী অফিসার মুহঃ রাশেদুল হক প্রধান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here