নাগরপুরে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের উপর হামলা

0
103

নাগরপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:
টাঙ্গাইলের নাগরপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের উপর হামলার অভিযোগে থানায় মামলা বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
৩১ সেপ্টম্বর দুপুরে উপজেলার ভাদ্রা গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. আলম মিয়ার বাড়ীতে ঘটনাটি ঘটেছে।
জানা যায়, উপজেলার ভাদ্রা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মো. আলম মিয়ার বাড়ীতে একই গ্রামের সুজন বেপারী ১০/১৫ জনের এক দল সন্ত্রাসী বাহিনী মুক্তিযোদ্ধার বাড়ীতে প্রবেশ করে ঘরের বারান্দার লোহার গ্রীল ভাংচুর করে এবং মুক্তিযোদ্ধার ছেলে মা. রাজিব মিয়া ও তার বন্ধু মো. ফারুক কে মারপিট করে গুরুত্বর আহত করে। আহতদের ডাকচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসী লাঠিয়াল বাহিনী পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ভর্তি করা হয়। আহতর পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা আলম মিয়া বাদী হয়ে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে নাগরপুর থানায় মামলা দায়ের করে।
বীরমক্তিযোদ্ধা মো. আলম মিয়া সাংবাদিকদের জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ভিকন ভাদ্রা গ্রামের ইব্রাহীম বেপারীর ছেলে সুজন বেপারী ১০-১৫ জনের একটি দল নিয়ে আমার ছেলে রাজিব ও তার বন্ধু ফারুককে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ধাওয়া করে। দুজনে জীবন বাঁচাতে দৌড়ে পালাতে চেষ্টা করে। আমার ছেলে রাজিব দৌড়ে ঘরে বারান্দার গ্রীল আটকাইয়া দিয়ে রক্ষা পায়। লাঠিয়াল বাহিনী আমার ছেলের বন্ধু ফারুককে মারপিট করে এবং আমার ছেলেকে প্রাণে মারার জন্য ঘরের বারান্দার গ্রীল ও ওয়াল ভাংচুর করে। আমি এবং আমার পুত্র বধূ সুমী আক্তার এগিয়ে আসলে উক্ত সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের উপর হামলা করে। আমাদের ডাকচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে লাঠিয়াল বাহিনী পালিয়ে যায়। পরে আমার ছেলের বন্ধু ফারুককে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের নিয়ে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে আসামাী পক্ষরা মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দিচ্ছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই কাজী আব্দুল আওয়াল বলেন, পং ভাদ্রা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আলম মিয়া বাদী হয়ে ১১জনের নাম উল্লেখ্য করে মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here