রাজারহাটে গৃহবধূর আত্মহত্যা নিয়ে ধুম্রজাল

0
52

প্রহলাদ মন্ডল সৈকত, রাজারহাট:
কুড়িগ্রামের রাজারহাট থানা পুলিশ গলায় ফাঁস লাগনো অবস্থায় এক গৃহবধু লাশ উদ্ধার করেছে। ওই গৃহবধু আত্মহত্যা করেছে নাকি তাকে কেউ হত্যা করে লাশ ঘরের তীরে ঝুলিয়ে রেখেছে তা নিয়ে চলছে এলাকায় ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা। লাশের প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করতে পুলিশ লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম মর্গে প্রেরণ করেছে। ঘটনার পর থেকে শ্বশুড়-শ্বাশড়ী ও দেবর পলাতক রয়েছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে, গত শনিবার রাতে উপজেলার প্রত্যন্ত পল্লী সুলতান বাহাদুর গ্রামে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, ওই গ্রামের আঃ আউয়ালের পুত্র নাজমুল ইসলাম বাবু(৩০) এর সাথে পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাট সদর উপজেলার গোকুন্ডা ইউনিয়নের মোস্তফি গ্রামের মজিবর রহমানের কন্যা মর্জিনা বেগম(২৩) এর ৫বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর দাম্পত্য জিবনে তাদের একটি পুত্র সন্তান আসে। এর পর সংসারের অভাব অনটনের কারণে সন্তানকে নিয়ে স্বামী-স্ত্রী ঢাকায় অবস্থান করছিল। পারিবারিক কলহের কারণে দেড়বছর ধরে মর্জিনা তার বাবার বাড়ীতে অবস্থান করে। গত ২দিন আগে বাবার বাড়ী থেকে মর্জিনা বেগমকে তার শ্বশুর ডেকে নিয়ে আসে। ২নভেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় গলায় উড়না পেঁছানো ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ স্বামীর বাড়ীর শয়ন ঘরে পাওয়া যায়। খবর পেয়ে ওই দিন রাতে রাজারহাট থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। পরে সুরতহাল রিপোর্ট করে লাশের ময়না তদন্ত করতে লাশ কুড়িগ্রাম মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় পুলিশ রাজারহাট থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের করেছে। একাধিক এলাকাবাসী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে শ্বশুড় বাড়ীর লোকজনের সাথে তার বনিবনতা চলছিল। ২নভেম্বর শনিবার সন্ধ্যায় বাড়ীর লোকজন মর্জিনা আত্মহত্যা করেছে বলে চিৎকার দিলে এলাকাবাসীরা ছুটে এসে মর্জিনার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়। কিন্তু বিছানা থেকে মাত্র ৩ইঞ্চি উপরে লাশ ঝুলছিল। এছাড়া বিছানার মধ্যে মশারি সহ কাপড় চোপড় গোছানো অবস্থায় ছিল। লাশ ধরে ফাঁসে ঝুলিয়ে দেয়ার সময় মর্জিনার পরনের কাপড়ে দাগ লাগানো ছিল। খাবারের সাথে ঘুমের ট্যাবলেট মিশিয়ে দিতে পারে। কিংবা বালিশ চাপাদিয়ে হত্যা করতে পারে বলে এলাকাবাসীরা সন্দিহান। রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ কৃষ্ণ কুমার সরকার বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে আত্মহত্যার তথ্য পাওয়া গেছে। এলাকায় কৌতুহল ছিল মর্জিনাকে হত্যা করা হতে পারে। তাই লাশের ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলেই আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here