স্টাফ রিপোর্টার:
কুড়িগ্রামের উলিপুর খাদ্য গুদামে ৭৪ বস্তা নি¤œমানের চালসহ একটি ট্রলি আটক করা হয়েছে। আটককৃত চালের বস্তায় খাদ্য অধিদপ্তরের ২০১৬, ১৭ ও ১৮ সালের সিল মোহর ছিল। এতে স্থানীয় জনতার সন্দেহ হওয়ায় ৯৯৯ নম্বরে ফোন কলে সহায়তা চাইলে পুলিশ এসে চালসহ ট্রলি জব্দ করে থানায় নিয়ে যায়। এই ফাঁকে গুদাম কর্মকর্তাসহ চাল মালিক সটকে পরেন।
জানা যায়, মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) ভোরে উলিপুর খাদ্য গুদামে তিনটি ট্রলি ভর্তি চাল নিয়ে আসা হয়। এসময় ভারপ্রাপ্ত খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলামের উপস্থিতিতে শ্রমিকরা তাড়াহুড়ো করে চাল খালাস করার সময় স্থানীয়দের মনে সন্দেহ দেখা দেয়। এসময় ৯৯৯ নম্বরে কল করলে উলিপুর থানার এসআই মশিউর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছান। তারা আসার পূর্বে ২টি ট্রলি, চালের মালিক ও ভারপ্রাপ্ত গুদাম কর্মকর্তা সটকে পরেন। পরে বস্তা খুলে দেখা যায় সেগুলে নি¤œমানের চাল।
বিষয়টি নিয়ে এসআই মশিউর রহমান জানান, অফিস শুরু হওয়ার পূর্বে সরকারি গুদামে কেন নি¤œ মানের চাল তোলা হচ্ছে তা শ্রমিকদের কাছে জানতে চাইলে তারা সদুত্তর দিতে পারেননি। এ সময় সেখান থেকে ৩০ কেজি ওজনের ৭৪ বস্তা চালসহ একটি ট্রলি আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।
খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলাম জানান, অফিস শুরু হওয়ার পূর্বে চাল তোলার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, আজ মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) আমার দায়িত্ব হস্তান্তরের কথা, সে কারণে গুদামের মজুদ ঠিক করছিলাম।
উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক হেমন্ত বর্মনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে রাজী হননি।
এ ব্যাপারে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ৯৯৯ থেকে ফোনকল আসায় সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। গুদামের ভিতরে থেকে মালিকবিহীন ট্রলি বোঝাই চাল জব্দ করে আনা হয়েছে। চালের প্রকৃত মালিকের খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল কাদের জানান, সংবাদ শুনে ঘটনাস্থলে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকসহ পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি তদন্ত করে তাকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here